উকুন দুর করার বিশেষ ৩ টি ঘরোয়া পদ্ধতি


উকুন কথাটির সাথে আমরা সকলেই বেশ পরিচিত। সব মেয়েদের মাথায় ই উকুন হয়ে থাকে। কারো কম আবার কারো বেশি। এই উকুন স্কুল পরোয়া মেয়েদের মাথায় দেখা যায় বেশি। এই উকুন নানা
ভাবে অন্য জনের মাথায় ছড়ায় ।রাতে এক বিছানায় শুইলে, একই চিরুনি ব্যাবহার করলে ইত্যাদি। মাথার চুল ভেজা ও অপরিষ্কার থাকলে ও উকুন হয়ে থাকে।


এই উকুনের যন্ত্রনা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য কিছু ঘরোয়া পদ্ধতি আপনাদের মাঝে তুলে ধরেছি-
১.নারিকেল তেল ও কর্পুর


একটি পরিষ্কার পাত্রে বা বাটিতে এক চা চামচ কর্পুরের সাথে এক চা চামচ নারিকেল তেল নিতে হবে। কর্পুরের তীব্র ঝাঁঝ উকুন দুর করতে খুবই কার্যকরি।এটিকে ভালভাবে মেশাতে হবে।তারপর
চুলে লাগাতে হবে। ২/১ ঘণ্টা লাগিয়ে রেখে পরে শ্যাম্পু করে চুল পরিষ্কার করে নিবেন। এতে উকুন দুর হয়ে যাবে। এটি সপ্তাহে ২ বার করতে পারেন। তাহলে দ্রুত ফল পাবেন।

২.রসুন ও লেবু


প্রথমে রসুন এর পেস্ট তৈরি করতে হবে । এক চামচ রসুনের পেস্ট এর সাথে এক চামচ লেবুর রস মেশাতে হবে। তারপর এটিকে ভালভাবে মেশাতে হবে। রসুনে রয়েছে এণ্টি ব্যাক্তেরিয়াল প্রোপার্টি ।
যার কড়া ঝাঁঝে উকুন মরে যায়। আর লেবু চুলের গোঁড়া মজবুত করতে এবং সিল্কি করতে ও সাহায্য করে। এই পদ্ধতিতে ১০০% উপকার পাবেন। রসুন ও লেবুর রসে মেশানো পেস্টটি চুলের গোঁড়ায়
ভালভাবে লাগাতে হবে। এটি ৪০/৪৫ মিনিট রাখতে হবে । পরে শ্যাম্পু করে ফেলতে হবে। এইভাবে সপ্তাহে ১/২ বার করলে অনেক উপকার পাবেন।

৩.তুলসি পাতা


আমরা সবাই জানি যে, তুলসি একটি ঔষধি উদ্ভিদ। এটি নানা রকম রোগ দুর করতে সাহায্য করে। যেমন – ঠাণ্ডা , কাশি দুর করতেও এর জুড়ি নেই। অসাধারণ এই তুলসি উকুন দুর করতে ও অপুর্ব কাজ
করে। তুলসি পাতার রস মাথায় ঘণ্টা খানেক লাগিয়ে রেখে পরে ধুয়ে ফেলবেন। এতেও উকুন কমে যাবে।

আসা করি কার্যকরি এই পদ্ধতি গুলো ব্যাবহার করে অনেক উপকার পাবেন।


Like it? Share with your friends!

Your reaction?
happy happy
0
happy
angry angry
0
angry
wtf wtf
0
wtf
cute cute
0
cute

উকুন দুর করার বিশেষ ৩ টি ঘরোয়া পদ্ধতি

log in

reset password

Back to
log in