এমন ১০ সেলিব্রিটি যাদের প্লাস্টিক সার্জারি করাটা পরবর্তিতে ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়ায়।


হলিউড সেলিব্রিটি সৌন্দর্য, গ্ল্যামার এবং ক্লাস এর উপমা হয়।তাদের স্বপ্ন থাকে অন্য রকম কারন তারা পেশাদার স্টাইলিশ। তারা মনে করে লক্ষ লক্ষ জনতা আমাদের দেখবে তাই আমাদের কে অন্য রকম
দেখাতে হবে।তাই এই সেলিব্রিটিরা অসম্ভব সুন্দর হয়। এই সুন্দর শুধু ষ্টেজেই বাস্তব জীবনে তারা অন্য রকম। তারা তাদের সুন্দর চেহারা আর যৌবনকে ধরে রাখতে নানা রকম চিকিৎসা করে থাকেন।
প্রচুর অর্থ খরচ হয় এতে।তারা সার্জারির মাধ্যমে ঠোঁট , নাক, স্তন , এমনকি পেটের ও সার্জারি করিয়ে থাকেন। এই গুলোতে কিছু ক্ষতির দিক রয়েছে ।
এমনি ১০ জন সেলিব্রিটির প্লাস্টিক সার্জারির পরের ভুল গুলো নিচে তুলে ধরা হল-
১- ডোনাতেলা ভার্সেস


আপনি পৃথিবীর সবচেয়ে বড় ফ্যাশন হাউসগুলির একজন ভাইস প্রেসিডেন্ট হলে তখন আপনি নিজে নিজে লক্ষ লক্ষ ব্যয় করতে পারেন,তার ফলে ও কিন্তু একদিন বিপর্যয় আসতে পারে। তেমনি
ডোনাতেলা ভার্সেস অনেক বার প্লাস্টিক সার্জারি করিয়েছিল নাক, ঠোঁট এবং চেহারার। এই সার্জারির ফলে তার অর্থ সংকট দেখা দেই যার ফলে সে সব হারাই।

২.. তেরা রিড


তেরা রিড আমেরিকান হলিউড অভিনেত্রী। তিনি স্তনের সার্জারি করিয়ে ছিলেন। তিনি শারীরিক অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে এক ধাপ এগিয়ে গিয়েছিলেন । যার ফলে নানা রকম সমস্যার সম্মুক্ষিন হন তিনি।
স্তনের সমস্যাই তিনি বেশি ভুগেছিলেন।

৩. মেগ রায়ান


এটা খুবই দু: খজনক যখন সুন্দর অভিনেতারা যারা হলিউডের চাপের শিকার প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের আশীর্বাদ লাভ করে এবং তাদের মুখে অস্ত্রোপচার করা হয় সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য । মেগ রায়ান ও তেমনি ,
তিনি তার সুন্দর মুখের কারনে পুরষ্কার জিতেছিলেন। কিন্তু বয়স বাড়ার সাথে সাথে তার চেহারার নানা রকম সমস্যাই জর্জরিত হয়ে পরেন।

৪. মাইকেল জ্যাকসন


তিনি একজন পপ গায়ক ছিলেন। তিনি কালো ছিলেন বলে সারা শরীরে সার্জারি করিয়েছিলেন।যার ফলে অনেক ফর্সা হয়ে উঠেন । এবং নাকের সার্জারি ও করান। এই বিপজ্জনক সার্জারির ফলে নানা রকম
সমস্যাই পরেন তিনি। পরবর্তিতে তার নাক টাকেও হারাতে হয়েছিল। এই সার্জারি তার অনেক বড় ভুল ছিল। যাই হোক তার পর ও আমরা মাইকেল কে সব সময় মনে রাখব এবং ভাল ও বাসি।

৫. . আমান্ডা লেপোর


তিনি অগণিত অস্ত্রোপচারের জন্য বিখ্যাত ছিলেন। আমান্ডা স্তন ইমপ্লান্ট, বাট ইমপ্লান্ট, নাক এবং ঠোঁটের সার্জারি করিয়েছিলেন।তিনি পাতলা কোমর পেতে সার্জারি করিয়েছিলেন যার ফলরূপ কোমর ভেঙ্গে
যায়। এটা খুবই দুঃখ জনক ছিল।

৬.হেইডি মন্টাগ


তিনি একজন বিখ্যাত গায়ক ছিলেন । তিনি প্লাস্টিক সার্জারিতেও বেশ এগিয়েছিলেন। আপনি জেনে অবাক হবেন যে, তিনি এক দিনেই ১০ বার সার্জারি করিয়েছিলেন ।তিনি স্তন ছাড়াও কানেও করিয়েছিলেন
যার ফলে মারাত্মক ক্ষতির সম্মুখীন হন।

৭. চেল্টন জেনার


পূর্বে ব্রুস জেনার হিসেবে পরিচিত এই সেলিব্রিটি অনেক প্লাস্টিক সার্জারি মাধ্যমে সবচেয়ে বিখ্যাত হয়েছিলেন।তার মুখ ৬ পদ্ধতিতে সার্জারি করা হয়েছিল।যার ফলে শ্বাসনালীর সমস্যা দেখা দেই এমনকি
পরবর্তিতে তার শ্বাসনালী হ্রাস পাওয়া শুরু করে।

৮. টোরি বানান


তিনি বিখ্যাত অভিনেত্রী ছিলেন। কিন্তু তার স্তন ছোট হওয়ার কারনে পিছিয়ে ছিলেন। পরবর্তিতে সার্জারির মাধ্যমে তার স্তনের গঠন বড় করা হয় এবং স্তনের সমস্যাই ভুগতে হয়েছিল তাকে।

৯. জেনিস ডিকিনসন


তিনি একজন আমেরিকার মডেল ছিলেন। তিনিও স্তন বৃদ্ধি ,ঘাড় এবং মুখের সার্জারি করান। আমি বিচারক নই তারপর ও বলতে ইচ্ছে করছে যে, মডেলগুলি যখন সৌন্দর্যের সাথে ইতিমধ্যেই আশীর্বাদ
পেয়েছে তখন এই পদ্ধতিগুলি না করলেই ই কি হতোনা? এতে পরবর্তিতে ক্ষতি ছাড়া কি ভাল হয় ?

১০. লারা ফ্লিন বোলে


বোলে একটি বিখ্যাত অভিনেত্রী যিনি অত্যন্ত সুন্দরী ছিলেন। কিন্তু এই অনিরাপদ পদ্ধতির ফলে তার সেই সুন্দর চেহারা আর দেখতে পান নি। তার সব সুন্দর্য্য হারিয়ে ফেলেন।

তাদের এই সার্জারি ক্ষণিকের জন্য সুন্দর দেখালে ও পরবর্তিতে বিপদ ডেকে আনে।


Like it? Share with your friends!

Your reaction?
happy happy
0
happy
angry angry
0
angry
wtf wtf
2
wtf
cute cute
0
cute

এমন ১০ সেলিব্রিটি যাদের প্লাস্টিক সার্জারি করাটা পরবর্তিতে ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়ায়।

log in

reset password

Back to
log in