পৃথিবীর সর্বাধিক আকর্ষণীয় ও বিপদজনক ১৫ নদী


নদী যেমন সৌন্দর্য বাড়ায় তেমনি আবার বিপদ ও বয়ে আনে। নদীর পানি বিভিন্ন উপকারে আসে কিন্তু সেই পানিতেই এমন কিছু প্রানির বাস রয়েছে যা খুব ই বিপদজনক । তেমন ই কিছু বিপজ্জনক ও
অদ্ভুত মারাত্মক ১৫ টি নদী আপনাদের সামনে তুলে ধরা হল-

১৫.পারানা নদী


দক্ষিণ আমেরিকার এই নদী টি ব্রাজিল, প্যারাগুয়ে, ও আর্জেন্টিনার মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হয়। এই নদীর দৈর্ঘ ৪৮৮০ এবং এই নদীতে বন্যা হয় কিন্তু এতে কোনো জমির উর্বরতার কারন হয়ে উঠে না। এটি
দেখতে খুব ই সুন্দর কিন্তু অনেক বিপজ্জনক ও ।

১৪.Yarra নদী


এই নদীটি বিপজ্জনক ম্যানুয়েল এর সঙ্গে সংযুক্ত। এই নদীর কাছাকাছি থেকে ঝড় উপভোগ করা এবং পর্যটকদের জন্য খুবই আকর্ষণীয় হলেও নদীতে অবাধে সাঁতার কাটতে গিয়ে অনেক বিপদের ই
সম্মুখিন হতে হয়। এই নদী অনেক বিপজ্জনক মৃত্যুর কারন। প্রতি বছর এখানে অনেক লোক মারা যায়।

১৩.নদী ভার্ফে


কিছু মানুষ মনে করেন যে, এই নদীটি সবচেয়ে বিপজ্জনক। এবং এর অনেক কারন ও রয়েছে । ইয়র্কশায়ারের নদী ভারফে,দেখতে ছোট হলেও এর ভয়ানকতা অনেক গভীর ।এখানে অনেক ডুবো শিলা রয়েছে
যা প্রাণঘাতী । এটি এমন একটি জলপ্রপাত যেটা সংকীর্ন হলেও এর গভীরতা ৯ মি থেকে ৯১ মিটার পর্যন্ত বা এর চেয়েও বেশি হতে পারে। নদীর পয়েন্টে যে একটি নম্বর হোস্ট আছে সেখানে অনেক
নতুন দম্পতিরা ই ঘুরতে গিয়ে প্রাণ হারায়।

১২. মারে নদী


অস্ট্রেলিয়ায় অনেক প্রাণঘাতী নদী রয়েছে যাদের মধ্যে মারে নদী অন্যতম ।একে খুনী নদীও বলা হয়।

১১.লাল নদী


লাল নদী দর্শকদের কাছে সুন্দর হলেও ভীতিকর । নদীটি আমেরিকার দক্ষিণাঞ্চলীয় রাজ্যগুলি অতিক্রম করে এবং তার প্রবাহগুলি স্বতন্ত্র এবং তার ইচ্ছামত যেখানে যায় সেখানেই বিপজ্জনক হয়ে উঠে।
যারা এই নদীতে ভ্রমন করতে যায় তাদেরকেই এই নদী গ্রাস করে কেউ আর ফিরে আসতে পারেনা।

১০.-আমুর নদী


রাশিয়ার আমুর নদী তার স্রোত এবং নন-পাথুরে গভীরতার জন্য অনেকটা নিরাপদ হলেও এটি দূষিত নদী । রাশিয়ান বিজ্ঞানী ধারণা দেন যে, এই নদীর পানি এতটাই দূষিত একটা মাছকে পচিয়ে ফেলতে
পারে । কোনো মানুষ যদি সেখানে সাঁতার কাটে তাহলে তার শরীরে ত্বক ক্যান্সার সহ অন্যান্য রোগ ব্যাধি দেখা দেয় ।

৯.কঙ্গো নদী


এই নদীটি আফ্রিকার চারপাশে সাপের মতো বিছিয়ে রয়েছে। এই নদীকে “দ্য হার্ট অব ডার্কনেস” বলা হয়। একে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম নদী ও বলা হয়। ৩০০০ মাইল দীর্ঘ এই জলপথটির ৭৫ মাইল
লম্বা একটি গভীর খাল রয়েছে যা ” দ্য গেটস অব দ্য হেল ” নামে পরিচিত ।

৮.ব্রিসবেন নদী


ব্রিসবেন নদী কুইন্সল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়াতে রয়েছে। এটি ফটোগ্রাফারদের প্রিয় নদীগুলির মধ্যে অন্যতম একটি নদী । দেখতে সুন্দর হলেও এটি অনেক বিপজ্জনক ও । বন্যা হলে হাঙ্গর উপরে উঠে আসে,
যার ফলে জনগণের উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে । হাঙ্গরের কামরের ফলে জীবাণু ছড়িয়ে পরে। যা খুবই মারাত্মক । যেমন সুন্দর তেমন বিপজ্জনক এই নদীটি ।

৭.ইনিসি নদী

The Yenisei River

রাশিয়ার এই নদীটি ৩৪৮৭ কিলোমিটার দীর্ঘ এবং রাশিয়ার ৬ টি শহরের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে এটি।এই পানিতে উচ্চমাত্রায় বিষাক্ততার বিকিরণের ফলে আশে পাশের বাসিন্দারের স্বাস্থ্যের ঝুঁকির
কারণ হয়ে দাঁড়ায় ।

৬.নীল নদ নদী


উত্তর-পূর্ব আফ্রিকায় প্রবাহিত নদী নীল নদী । ২০০৭ সালে গবেষকরা আমাজন নদী থেকে শিরোনাম নিয়ে বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘ তম নদী হিসেবে পরিচিতি পাওয়ায় এই নদীকে । এটি ৬৮৫৩ কিলোমিটার
দীর্ঘ এবং এখানে বিষাক্ত সাপ, কুমির, ও মাকড়সা রয়েছে।

৫. মেকং নদী


চীন, লাওস, কম্বোডিয়া, ভিয়েতনাম, বার্মা এবং থাইল্যান্ডের মাধ্যমে এশিয়াতে ৪৩৫০ কিলোমিটার দীর্ঘ মেকং নদী প্রবাহিত হয়।২০০০ সালের বন্যাতে ৯০ জন মৃত্যু বরন করে এই নদীতে । ২০০৮ সালের বন্যাতে
ক্ষয় ক্ষতির পরিমাণ দাঁড়ায় ৬৬ মিলিয়ন ডলার । এখানে বিপজ্জনক কুমির ও রয়েছে।

৪.নাইজার নদী


নাইজার নদীটি পশ্চিম আফ্রিকার প্রধান নদী, ২০১০ সালে ৫০০০ এর বেশি লোক এবং ৩০০০০ প্রাণীর প্রাণ হারায়। ৪১৮০ কিলোমিটার দৈর্ঘের এই নদীটি অনেক ভয়ঙ্কর রূপ রয়েছে।

৩. কার্ন নদী


ক্যালিফোর্নিয়ার কার্ন নদীর চারপাশে নিখোঁজ হওয়া মৃতদেহ খুঁজে পাওয়া যায় । সিয়েরা নেভাদা পর্বত মালার জনপ্রিয় শিলা পর্বত মালার প্রারম্ভিক আকর্ষণ এই নদী । অনেকের দাবী ১৯৬৮ সালে মৃত্যুর
সংখ্যা দাঁড়ায় ২৭১ জন । ২০১৪ সালে এই নদীতে সাঁতার কাটতে গিয়ে ভয়ঙ্কর ভাবে ডুবে মারা গিয়েছিল ২ জন ছেলে। এই নদীতে প্রতি বছর মৃতের সংখ্যা বেড়ে যায়।

২.হলুদ নদী


চীনের এই হলুদ নদী হুয়াং হিল নামে পরিচিত। এটি এশিয়ার তৃতীয় দীর্ঘতম নদী এবং বিশ্বের ছয়টি দীর্ঘতম নদীর সমান ।এই নদীর পানির উৎস বেয়ান হার পর্বত মালা। । এটি বিশ্বের সবচেয়ে বিপজ্জনক এবং ধ্বংসাত্মক
নদী হওয়ার খ্যাতি পায়। একে দুঃখ নদীও বলা হয়। এই নদীতে কোনো লোক একবার পরে গেলে তার লাশটাও আর খোঁজে পাওয়া যায়না।

১.আমাজন নদী


দক্ষিণ আমেরিকায় অবস্থিত আমাজন নদীটি আটলান্টিক মহাসাগরের মুখোমুখি হওয়ায় কিছু লেখক এটিকে বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘতম নদী হিসেবে অভিহিত করেছেন ।৬৯৯২ কিলোমিটার দীর্ঘ, যা
তার কঙ্গো ভাইয়ের মতই নেভিগেট করা অসম্ভব করে তোলে। এই নদীটি বিরাট জলজ জীবের বসবাসের স্থান। এখানে মাছ অস্বাভাবিক ভাবে বেড়ে উঠে । আপনে রীতিমত ভয়ে শিউরে উঠবেন এই
কারনে যে, এর দিকে তাকালে মনে হবে বড় এক এনাকুণ্ডা সাপের বাড়ি দেখতে পাচ্ছেন আপনি। কি ভয়ানক আপনি ভাবতেই পারবেন না !


Like it? Share with your friends!

Your reaction?
happy happy
0
happy
angry angry
0
angry
wtf wtf
0
wtf
cute cute
0
cute

পৃথিবীর সর্বাধিক আকর্ষণীয় ও বিপদজনক ১৫ নদী

log in

reset password

Back to
log in